Latest News

রাজনীতি
জাতীয়

আন্তর্জাতিক

বিনোদন

খেলাধুলা

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

সর্বশেষ

স্পেনে উদযাপিত হচ্ছে ঈদ উল আযহা

এসবিএন ডেস্ক : মুখে মাস্ক আর নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে স্পেনের মুসলমান প্রবাসী বাংলাদেশিরা ঈদুল আযহার নামাজ আদায় করেছেন। দেশটির রাজধানী শহর মাদ্রিদ, পর্যটন নগরী বার্সেলোনা, কানারিয়াস দ্বীপপুঞ্জসহ বিভিন্ন শহরে ছড়িয়ে থাকা প্রবাসী বাংলাদেশিরা ঈদের নামাজ আদায় করে ও একে অপরের সাথে কুশলাদি বিনিময় করে ঈদের দিনকে আনন্দময় করার চেষ্টা করেন। করোনার প্রাদুর্ভাব কিছুটা বেড়ে যাওয়ার পরও স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেশটির মসজিদগুলোতে ঈদুল আযহার নামাজের অনুমতি থাকায় মুসল্লিরা ঈদের নামাজে অংশগ্রহণ করতে পেরেছেন।
রাজধানী শহর মাদ্রিদে বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকা লাভাপিয়েস সংলগ্ন বায়তুল মুকাররম জামে মসজিদে ঈদের নামাজের ৫টি জামাত অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৭টা ৪৫, ৮টা ৩০, ৯টা ১৫, ১০টা ও ১০টা ৪৫মিনিটে অনুষ্ঠিত ঈদের জামাতগুলোতে পাঁচ শতাধিক মুসল্লি অংশগ্রহণ করেন। কভিড-১৯ এর কারণে ঈদের নামাজে ছিল বিশেষ সতর্কতা। প্রতিটি জামাতে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখার জন্য ১৩২ জন করে নামাজ আদায় করেন, যেখানে একইসাথে পাঁচ শতাধিক মানুষ নামাজ আদায় করতে পারতেন। মুসল্লীদের বাসা থেকে অযু করে এবং জায়নামাজ নিয়ে আসার নিদের্শনা ছিল। নামাজ শেষে খুতবায় কভিড-১৯ থেকে মুক্তির জন্য আল্লাহ‘র কাছে বিশেষ ফরিয়াদ ও বিশ্বের সকল নির্যাতিত মুসলমানদের হেফাজত ও শান্তি কামনা করা হয়।
এছাড়াও শাহ জালাল লতিফিয়া জামে মসজিদ ও আল হুদা মসজিদে ৩টি করে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।
পর্যটন নগরী বার্সেলোনায় বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকাগুলোর বাংলাদেশি পরিচালনাধীন মসজিদগুলোতেও ঈদুল আজহার নামাজের বেশ কয়েকটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। বর্তমান সময়ে করোনা সংক্রমণের মাত্রা দেশটির কাতালোনিয়া প্রদেশে বৃদ্ধি পাওয়ায় ঈদের নামাজ পড়া নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিলেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন। পুরোপুরি উৎসবপূর্ণ পরিবেশে না হলেও তারা নিজেদের মধ্যেই ঈদ আনন্দ ভাগাভাগি করে নিয়েছেন।
কানারিয়া দ্বীপপুঞ্জভুক্ত শহর টেনেরিফেও ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। টেনেরিফ থেকে তারেক সিদ্দিকী  জানান, টেনেরিফে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশিরাও ঈদের নামাজ পড়ে ও একে অপরের সাথে ঈদের কুশলাদি বিনিময় করে ঈদ উদযাপন  করেছেন। ওখানেও ছিল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা। সকাল ৭টা ৩০ ও ৮টা ৩০ মিনিটে ঈদের দুইটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়। জামাত দু’টিতে বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তানসহ বেশ কয়েকটি দেশের অভিবাসীরা নামাজ আদায় করেন।
প্রসঙ্গত,  স্পেনে করোনা মহামারির কারণে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করার অনুমতি ছিল না। করোনার প্রাদুর্ভাব থেকে উন্নতির দিকে যাওয়া দেশটিতে আবারো করোনার ’দ্বিতীয় ধাপ’-এর আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাই ঈদুল আযহার নামাজ আদায়ে দেখা দিয়েছিল প্রশ্ন। শেষ পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেশটিতে অবস্থিত মুসলমানদের মসজিদে ঈদের নামাজ আদায় করার অনুমতি পাওয়া যায়। তবে দেশটিতে প্রকাশ্যে পশু কোরবাণি দেয়ার নিয়ম না থাকায় স্থানীয় গ্রোসারি দোকান থেকে মাংস কিনে নিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।


টেনেরিফে বাড়ছে বাংলাদেশিদের সংখ্যা, ঐক্যবদ্ধ কমিউনিটির নানা কার্যক্রম

তারেক সিদ্দিকী, টেনেরিফ থেকেঃ ‘টেনেরিফ’। গ্রান কারানিয়াস দ্বীপপুঞ্জভুক্ত একটি দ্বীপ। অনিয়মিতদের সহজ বৈধতা আর কাজের নিশ্চয়তা থাকায় অভিবাসীদের জন্য টেনেরিফ গন্তব্য হয়ে উঠছে অনেকেরই। অভিবাসী বাংলাদেশিদের সংখ্যাও ক্রমান্বয়ে বাড়ছে এ দ্বীপ শহরে। টেনেরিফে প্রায় ৭০০ বাংলাদেশি বাস করছেন। নিজস্ব ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান যেমন রয়েছে অনেকেরই; তেমনি কর্মজীবির সংখ্যাও কম নয়। কর্মক্ষেত্রে রয়েছে বাংলাদেশিদের সুনাম। সম্প্রতি করোনা মহামারি জীবনযাত্রাকে কয়েক মাসের জন্য থমকে দিলেও আবার জেগে ওঠেছে টেনেরিফ। তবে পর্যটকদের পদযাত্রার দেখা পুরোপুরি মেলেনি পর্যটকদের আকৃষ্ট করার এ দ্বীপ টেনেরিফ।

করনাকালীন সময়ে সুস্থ আছেন বাংলাদেশিরা
করোনা মহামারিতে টেনেরিফ লকডাউনে ছিল মাস তিনেক। বৈশ্বিক মহামারি করোনায় টেনেরিফে আক্রান্ত হোন ২
হাজার ৪৮৩ জন। আর প্রাণ যায় ১৬২ জনের। তবে সুখকর সংবাদ- কোন বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত হবার খবর পাওয়া যায়নি। কর্মহীন বিপাকে পড়া স্থানীয় প্রবাসীদের নানা সামগ্রী উপহার দিয়েছেন কমিউনিটি নেতা জাকির আহমেদ, মন্টু মিয়া প্রমূখ। এদিকে লকডাউন পরবর্তী জনজীবন কিছুটা স্বাভাবিক হলেও পর্যটননির্ভর টেনেরিফের রেস্তোরাঁগুলো এখনো সব খোলেনি। কাজে স্থবিরতা বিরাজমান। কর্মহীন অন্যান্যদের মতো ওখানে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরাও সরকারী অনুদান গ্রহণ করছেন। আগষ্ঠে কাজের ব্যস্ততা বাড়লে কর্মক্ষেত্রে ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে সবার।

এ সময়ে বাংলাদেশিদের নানা কার্যক্রম
কর্মহীন অবসর সময়ে টেনেরিফের বাংলাদেশিরা স্প্যানিশ ভাষা শিক্ষা ও কোরআন শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। স্থানীয় কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব ফারুক আহমেদের তত্বাবধানে পরিচালিত হচ্ছে স্প্যানিশ ভাষা শেখার ক্লাস। আর পাবেল আহমেদ পরিচালনা করছেন কোনআন শিক্ষা কার্যক্রম।
প্রাপ্ত অফুরন্ত সময়ে খেলাধূলায়ও মত্ত্ব আছেন স্থানীয় তরুণ বাংলাদেশিরা। নিজেদের সংগঠন বেঙ্গল ক্লাবের উদ্যোগে ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আয়োজনও করা হয়।
লকডাউনেও টেনেরিফে বাংলাদেশিদের নির্মিত মসজিদ আল সুন্নাতে ঈদুল ফিতরের নামাজের অনুমতি পাওয়া গিয়েছিল। আসন্ন ঈদুল আযহায়ও এ মসজিদে স্থানীয় মুসল্লীরা ঈদের নামাজ আদায় করবেন।
টেনেরিফে সৌহার্দ্যপূর্ণ জীবন যাপন প্রবাসী বাংলাদেশিদের। তবে করোনা পরবর্তী কর্মমূখর স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে উদগ্রীব সবাই।

ঈদের আগের দিন স্পেনে করোনাভাইরাসে এক বাংলাদেশির মৃত্যু

এসবিএন ডেস্ক: স্পেনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ প্রথম একজন বাংলাদেশি মহিলা মৃত্যুবরণ করেছেন। তার নাম সৈয়দা জামিলা খাতুন (৭৩)। স্থানীয় সময় ২৩ মে সকাল সাড়ে ১১টায় কাতালোনিয়ার আরনাউ দে ভিলানভা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন। সৈয়দা জামিলা খাতুনের বাড়ি বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়। এ নিয়ে স্পেনে করোনাভাইরাসে ৪ জন প্রবাসী বাংলাদেশি মৃত্যুবরণ করেছেন।
মৃতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, সৈয়দা জামিলা খাতুন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১৭ দিন ধরে লেইডার আরনাউ দে ভিলানভা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। ২৩ মে  সকালে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জামিলা খাতুন মৃত্যুবরণ করেছেন বলে তার পরিবারকে জানায়।
মৃত সৈয়দা জামিলা খাতুন কাতালোনিয়া প্রদেশের লেইডায় বসবাস করতেন। মৃত্যুকালে তিনি ৩ ছেলে ও ৪ মেয়ে রেখে গেছেন। ছেলে ৩ জনই স্পেনে বসবাস করছেন। সৈয়দা জামিলা খাতুনের মেঝ ছেলে সৈয়দ গোলাম মোস্তফা জানান, জরুরি অবস্থার কারণে বাংলাদেশে যেহেতু লাশ প্রেরণ সম্ভব নয়, তাই স্পেনেই তার মায়ের কবরের ব্যবস্থা করার জন্য তারা প্রস্তুতি নিচ্ছেন।
প্রসঙ্গত, স্পেনে স্বস্থিজনকহারে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী ও মৃতের সংখ্যা কমছে। ইতিমধ্যে জরুরি রাষ্ট্রীয় সতর্কতার বিভিন্ন বিষয় শিথিল করে ৪ ধাপের একটি পরিকল্পনা সরকার ঘোষণা করেছে। এ ধাপগুলো সফলভাবে সম্পন্ন হলে আগামী জুন মাসের শেষের দিকে স্বাভাবিক অবস্থায় স্পেন ফিরে আসবে বলে দেশটির প্রধানমন্ত্রী পেদ্র সানচেজ জানিয়েছেন। বৈশ্বিক এ মহামারিতে স্পেনে গত ২৬ মার্চ হোসাইন মোহাম্মদ আবুল (৬৭), ৫ এপ্রিল জাকির হক ওরফে আনোয়ার হোসেন (৬৭),  ৬ এপ্রিল আব্দুস শহীদ (৫৭) ও ২৩ মে সৈয়দা জামিলা খাতুন (৭৩)- এ ৪ জন প্রবাসী বাংলাদেশি মৃত্যুবরণ করেছেন। 
মুক্তমত

যোগাযোগ

Editor:Sahadul Suhed, News Editor:Loukman Hossain E-mail: news.spainbangla@gmail.com