Latest News

রাজনীতি
জাতীয়

আন্তর্জাতিক

বিনোদন

খেলাধুলা

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

সর্বশেষ

স্পেনের গণমাধ্যমে নুসরাত হত্যা

সাহাদুল সুহেদ:  বাংলাদেশে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহানের হত্যাকাণ্ড- গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশ করেছে স্পেনের সংবাদ মাধ্যম।  স্পেনের জাতীয় দৈনিক ‘লা ভানগুয়ারদিয়া’ ও জনপ্রিয় টেলিভিশন ‘লা সেক্সতা’ সহ বেশ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে  ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহানের হত্যাকা-ের খবর।
স্পেনের প্রভাবশালী জাতীয় দৈনিক ‘লা ভানগুয়ারদিয়া’ গত ১৮ এপ্রিল আন্তর্জাতিক সংবাদ বিভাগে শিরোনাম করে ‘যৌন হয়রানির রিপোর্টের জন্য বাংলাদেশে এক যুবতীকে জীবন্ত পুড়িয়ে হত্যা’।  সংবাদটির শুরুটা ছিলো এভাবে- তার নাম নুসরাত জাহান রাফি। ওরা তার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। ঘটনার প্রায় দুই সপ্তাহ আগে তিনি তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। ১৯ বছর বয়সী এ তরুণীর মৃত্যু সাথে সাথে হয়নি। পাঁচদিন পর তার হৃদযন্ত্র পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। পত্রিকাটিতে নুসরাত হত্যায় জড়িত সন্দেহে মাদ্রাসার পরিচালককে গ্রেফতারের কথাও উল্লেখ করা হয়। নুসরাত হত্যার প্রতিবাদে বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্র এর ব্যানারে ‘নুসরাতের জন্য পদযাত্রা’ এর ছবি সংবাদে সংযুক্ত করা হয়।
‘সেক্সতা’ টেলিভিশন সংবাদে নুসরাত হত্যার খবর গুরুত্বসহকারে প্রচার করে। ১৯ এপ্রিল প্রচারিত সংবাদটিতে উল্লেখ করা হয়- নুসরাতের মৃত্যু পুরো বাংলাদেশকে হতাশ করেছে। কর্তৃপক্ষ ১৫ জনকে গ্রেফতার করেছে, যাদের মধ্যে সাতজনই হত্যার অভিযোগের সাথে জড়িত। মাদ্রাসার অধ্যক্ষ জেল হাজতে রয়েছেন। নুসরাতের করা অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ নথিভুক্ত যে পুলিশ কর্মকর্তা করেছিলেন, তাকে তার পদ থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।
‘এল পুবলিকো’ এর শিরোনাম ছিলো- ‘যৌন নির্যাতন: বাংলাদেশে এক তরুণীকে জীবন্ত পুড়ানো হয়’। গত ১৮ এপ্রিল প্রকাশিত এ সংবাদের বিস্তারিত অংশে ছিলো- নুসরাত জাহান রাফী বাংলাদেশে যৌন নির্যাতনের সর্বশেষ শিকার। ১৯ বছর বয়সী মেয়েটি তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেছিলেন। অভিযোগের মাত্র ২ সপ্তাহ পরে তাকে তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জীবন্ত পুড়ানো হয়। ৫দিন পর তিনি মৃত্যুবরণ করেন।  ‘লা সেক্সতা’ টেলিভিশনের রিপোর্টের বরাত দিয়ে সংবাদ মাধ্যমটি আরো জানায়, মৃত্যুর আগে শেষ বিবৃতিতে নুসরাত জানায়, ‘অধ্যক্ষ আমাকে স্পর্শ করেছিলেন; আমার শেষ নি:শ্বাস থাকা পর্যন্ত আমি এ অপরাধের বিরুদ্ধে লড়াই করবো।’ সংবাদের শেষাংশে উল্লেখ করা হয়, এশিয়ার দেশগুলোতে রক্ষণশীল সমাজ কর্র্তৃক প্রত্যাখানের ভয়ে অধিকাংশ যৌন হয়রানির সংবাদ প্রকাশিত হয় না।
‘এল কমর্সিও’, ‘এল উসিভার্সাল’, ‘টেলিমুণ্ডো’, ‘উল্তিমা অরা’সহ স্পেনের  বিভিন্ন শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যমও নুসরাত হত্যার খবর প্রচার করে।

বার্সেলোনায় ৫২ বাংলা টিভি‘র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

এসবিএন ডেস্ক: স্পেনের বার্সেলোনায় লন্ডন থেকে প্রচারিত অনলাইনভিত্তিক চ্যানেল ‘৫২ বাংলা টিভি’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠিত হয়েছে। ‘দুই বছরে পা, বিশ্বায়নে বাংলা’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ২৭ ফেব্রুয়ারি বার্সেলোনার স্থানীয় একটি হলরুমে আয়োজিত এই টিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্পেনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের দূতালয় প্রধান এম হারুণ আল রাশিদ।
‘৫২ বাংলা’ টিভি‘র বার্সেলোনা প্রতিনিধি মো. ছালাহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সংবাদ পাঠিকা জিনাত শফিকের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন এন কাতালোনিয়ার সভাপতি মাহারুল ইসলাম মিন্টু, বার্সেলোনার বাংলা স্কুলের সভাপতি আলাউদ্দিন হক, স্পেন-বাংলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আফাজ জনি, অল ইউরোপ বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও স্পেন-বাংলা প্রেসক্লাবের প্রথম সদস্য মিরন নাজমুল, মহিলা সমিতি বার্সেলোনার সভাপতি মেহেতা হক, বন্ধুসুলভ মহিলা সংগঠন বার্সেলোনার সভাপতি শিউলি আক্তার। স্পেন-বাংলা প্রেসক্লাবের প্রচার সম্পাদক এম লায়েবুর রহমানের কোরআন থেকে তেলাওয়াতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ দূতাবাসের দূতালয় প্রধান এম হারুণ আল রাশিদ ৫২ বাংলা টিভি‘র সাফল্য কামনা করে আরো বলেন, অনলাইন ভিত্তিক হলেও এ টিভি চ্যানেলটি বেশ জনপ্রিয় এবং সে ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে। ভবিষ্যতে  একটি পূর্ণাঙ্গ স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল হিসেবে যাতে এ টিভি চ্যানেলটি আত্মপ্রকাশ করে, সেজন্য কর্তৃপক্ষকে চেষ্টা করে যেতে হবে। স্পেনে বাংলা মিডিয়ায় কাজ করা সংবাদকর্মীরা কমিউনিটির উন্নয়নে কাজ করছেন উল্লেখ করে এম হারুণ আল রাশিদ বলেন, দূতাবাসের কার্যক্রম পরিচালনায় সংবাদিকদের সংবাদ পরিবেশনও অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ঢাকা জেলা সমিতি বার্সেলোনার সভাপতি শাহ আলম স্বাধীন, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন এন কাতালোনিয়ার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শফিক খান, কাতালোনিয়া যুবলীগের সভাপতি কাজী আমির হোসেন আমু, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন কাতালোনিয়ার সাংগঠনিক সম্পাদক হারুনুর রশিদ।
এ ছাড়াও বক্তব্য দেন গোলাপগঞ্জ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সাব্বির আহমদ দুলাল, প্রবাস কথা-এর স্পেন প্রতিনিধি মো. এখলাস মিয়া, বার্সেলোনা বাংলা স্কুলের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমেদ, গোলাপগঞ্জ সমিতির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, ঢাকা জেলা সমিতির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন চৌধুরী, উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান সুহেল, ভয়েস অব বার্সেলোনার সভাপতি ফয়সল আহমদ, সাধারণ সম্পাদক এআর লিটু, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শিপলু রাজ, বার্সেলোনা পূজা কমিটির সাধারণ সম্পাদক শিমুল চৌধুরী, স্পেন-বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য জাফার হোসাইন ও সালেহ আহমদ সোহাগ, স্পেন ছাত্রলীগ সভাপতি ইসমাইল হোসাইন রায়হান, বার্সেলোনা যুবদল সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হক প্রমূখ।
আলোচনা সভা শেষে অতিথিবৃন্দ ‘৫২ বাংলা টিভি’ এর দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন।
ছবি: এম লায়েবুর রহমান।

বার্সেলোনায় ‘মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস’ সম্পন্ন

এসবিএন ডেস্ক: ফুটবল আর পর্যটন নগরী বার্সেলোনায় সম্পন্ন হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মোবাইল ইভেন্ট ‘মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস’ এর ১৪তম আসর। বার্সেলোনার ফিরা গ্রাণ ভিয়া ও ফিরা মঞ্জুইকে ৪ দিনব্যাপী (২৫-২৮ ফেব্রুয়ারি) অনুষ্ঠিত এ মোবাইল কংগ্রেসে বিশ্বের নামকরা মোবাইল কোম্পানি তাদের বর্তমান ও ভবিষ্যত মোবাইল প্রযুক্তির বর্ণনা ও প্রদর্শন করে। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে এ কংগ্রেসে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ সরকারের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বারের নেতৃত্বে ৯ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। বাংলাদেশ নিয়মিত এ কংগ্রেসে অংশগ্রহণ করলেও প্রথমবারের মতো এবারের মিনিষ্টেরিয়াল কনফারেন্সে কীনোট উপস্থাপন করেছে।
‘দিজ ইজ হুয়াট উই আর ওয়েটিং ফর’ বার্তা দিয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারি ‘মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস’ শুরু হয়েছিল। ‘ইন্টেলিজেন্ট কানেক্টিভিটি’ থিমকে সামনে রেখে এবারের কংগ্রেসে প্রায় ১৯৮টি দেশের ১লক্ষ ৯ হাজরের উপর দর্শনার্থী সমবেত হয়েছিলেন বলে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস এর ওয়েবসাইট থেকে জানা গেছে। উচ্চ গতির ফাইভ জি নেটওয়ার্কসহ নতুন নতুন প্রযুক্তি কীভাবে নাগরিক জীবন ও ব্যবসাকে ইতিবাচক পরিবর্তন করবে- এ প্রসঙ্গ প্রাধান্য পায় এবারের কংগ্রেসে।
চার দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত এ ‘মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস’ এ প্রতিদিনই ছিল প্রাসঙ্গিক প্রযুক্তিবিষয়ক কনফারেন্স। এবারের কংগ্রেসের মিনিষ্টেরিয়াল কনফারেন্সে প্রথমবারের মতো কীনোট উপস্থাপন করেছে বাংলাদেশ। ২৬ ফেব্রুয়ারি ‘মোবাইল ইনফ্রাস্ট্রাকচার : ইজ ইউর পলিসি ফিট ফর পারপাস?’ শিরোনামে কীনোট উপস্থাপন করেন বাংলাদেশের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। ডিজিটাল টেকনোলজিকে ব্যবহার করে বাংলাদেশে যে উন্নয়নের ধারাগুলো বাস্তবায়ন হচ্ছে সেগুলো তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন। ফাইভ জিতে যাবার জন্য বাংলাদেশের প্রস্তুতি ছাড়াও বাংলাদেশের টেলিকমিউনিকেশনের উন্নয়ন, সফটওয়্যার সক্ষমতা নিয়েও আলোকপাত করেন মন্ত্রী।
প্রসঙ্গত: মোবাইল কংগ্রেসের রাজধানী হিসেবে বার্সেলোনা এখন বিশ্বময় পরিচিত। শহরটিতে ২০০৬ সাল থেকে নিয়মিত মোবাইল কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ২০১৮ সাল পর্যন্ত বার্সেলোনায় এ মোবাইল কংগ্রেস হওয়ার কথা থাকলেও ২০১৫ সালে ফিরা বার্সেলোনার সঙ্গে এক চুক্তিপত্রের মাধ্যমে ২০২৩ সাল পর্যন্ত তা বর্ধিত করা হয়েছে। চারদিনের এ মোবাইল কংগ্রেস  ঘিরে প্রতিবছরই পর্যটকদের পদচারণায় বার্সেলোনা শহরের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। অন্য সবার মতো প্রবাসী বাংলাদেশিদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও ইতিবাচক অর্থনৈতিক প্রভাব পড়ে।


ছবি: এম লায়েবুর রহমান।
মুক্তমত

যোগাযোগ

Editor:Sahadul Suhed, News Editor:Loukman Hossain E-mail: news.spainbangla@gmail.com